লিংকডইন এর মাধ্যমে আয়ের পথ প্রশস্ত করুন!

0
1011

“Tech Inside” এর পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে জানাই অগ্রিম শুভেচ্ছা। আপনাদের যেকোন প্রশ্ন ও মতামতের জন্য আমাদের সাথে ওয়েবসাইটফেসবুক পেজফেসবুক গ্রুপইউটিউব চ্যানেললিংকডইন কোম্পানি পেজ এর মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারেন।

চলুন, আর কথা না বাড়িয়ে মূলপর্বে চলে যাইঃ

আজকে আমি দেখাব কিভাবে লিঙ্কডইন থেকে আয় করা যায়। লিঙ্কডইন হচ্ছে একটা সোশ্যাল মিডিয়া প্লাটফর্ম। লিংকডইন মার্কেটিং বিভিন্ন মাধ্যমে কাজে লাগিয়ে আয় করা যায়। এই বিভিন্ন মাধ্যমে আয় করার কৌশল গুলো নিয়ে এখন আলোচনা করা হবে।

লিঙ্কডইন মার্কেটিং করতে গেলে কি কি বিষয় প্রয়োজন হতে পারে সেগুলো হলঃ

  • LinkedIn account.
  • Good skills in English.
  • Good skills in LinkedIn.
  • Have a portfolio site.
  • Have an account on workplace/CPA or affiliate market place.

শুরুতেই আপনার একটা লিঙ্কডইন অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে। কমিউনিকেশন করার জন্য ইংরেজিতে দক্ষ হতে হবে। লিঙ্কডইন সম্পর্কে ভাল আইডিয়া থাকতে হবে। একটা পোর্টফোলিও ওয়েবসাইট থাকলে কাজ পাওয়ার মাত্রা অনেক ক্ষেত্রে বেড়ে যাবে। বিভিন্ন ওয়ার্কপ্লাসে কাজ করতে পারেন যেমনঃ ফাইভার, কন্টেন্টমারট, আপওয়ার্ক ইত্যাদি। তাছাড়া বিভিন্ন মার্কেটপ্লেস থেকে অফার বা প্রোডাক্ট নিয়ে মার্কেটিং করার মাধ্যমেও আয় করতে পারেন। যেমনঃ বিভিন্ন সিপিএ নেটওয়ার্ক (ম্যাক্সবাউন্টি, সিপিএফুল, পীয়ারফ্লাই), অ্যাফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস (আমাজন, আলিবাবা, আলিএক্সপ্রেস) ইত্যাদি যেকোন এক জায়গায় অ্যাকাউন্ট থাকতে হবে।

ভিডিওতে আমরা একটা লিঙ্কেডইন এর ড্যাশবোর্ড দেখতে পাচ্ছি। লিঙ্কডিন এ কিভাবে অ্যাকাউন্ট ওপেন করতে হয় সে বিষয় নিয়ে আমরা পরে জানব। এখন আমরা দেখব কোন ওয়ার্কপ্লেস গুলো থেকে আমরা কাজ পেতে পারি। উদাহরণস্বরূপ, ফাইভার নিয়ে আলোচনা করছি।

ফাইভার একটা ওয়ার্কপ্লেস। এখানে লিঙ্কডইন এর অনেক কাজ আছে। এখানে গিগস তৈরি করার মাধ্যমে কাজ পাওয়া যায়। বিভিন্ন ক্রেতারা আপনার গিগ দেখবে। যদি তাদের কাছে এই গিগ ভাল লাগে তাহলে তারা আপনাকে কাজের অর্ডার করবে। যেমনঃ এখানে একটা গিগ দেখতে পাচ্ছি; গিগে বলা আছে “i will create an effective engaging LinkedIn company page” অর্থাৎ, আপনি যদি কোম্পানি পেজ তৈরি করতে পারেন তাহলে আপনি কাজের অর্ডার পেতে পারেন। লিঙ্কডইন সম্পর্কে যে কাজ গুলো আপনি ভাল পারেন সেই সব কাজের উপর ভিত্তি করে আপনি গিগ তৈরি করবেন।

সিপিএঃ তাছাড়াও আপনি লিঙ্কডইন কে কাজে লাগিয়ে সিপিএ মার্কেটিং করতে পারবেন। সিপিএ নেটওয়ার্ক থেকে বিভিন্ন সিপিএ অফার নিয়ে মার্কেটিং করে আপনি আয় করতে পারেন।

যেমন ধরুন, আপনি হেলথ টাইপের প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করতে চান। সেক্ষেত্রে আপনি “offervault.com” গিয়ে “advance search” ক্লিক করে ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে নিবেন। যেহেতু আপনি হেলথ নিয়ে কাজ করতে চাচ্ছেন সেহেতু হেলথ ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে সার্চ বাটন এ ক্লিক করবেন।

এখানে আপনি অনেক অনেক হেলথ রিলেটেড অফার দেখতে পাচ্ছেন। এখানে একটা অফার আছে  “addiction  recovery now” এবং “addiction  recovery now” হচ্ছে একটা সিপিএ নেটওয়ার্কপ্লেস যেখানে একাউন্ট থাকলে এই অফার নিয়ে আপনি কাজ শুরু করতে পারবেন। একটা নিউট্যাব ওপেন করলে সিপিএ নেটওয়ার্ক সাইট যাবে। এখানে আপনি রেজিসট্রেশন করে আপনার মার্কেটিং এর কাজ শুরু করে দিতে পারেন।